রবিবার | ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯
‘পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে টেকসই পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা’ শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনারে

জনগনের জানমাল রক্ষার জন্য সরকারের যা করা দরকার তাই করবে : পার্বত্যমন্ত্রী (ভিডিওসহ)

প্রকাশঃ ১৭ অগাস্ট, ২০১৯ ০৯:৩৪:৪৪ | আপডেটঃ ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০৮:২৩:৫৬
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশেসিং এমপি বলেছেন,   বন ধ্বংসের কারণে পার্বত্য চট্টগ্রামে পানির উৎস শুকিয়ে গেছে। এসব পানির উৎস রক্ষায় নদ-নদী পাহাড়ি ছড়া, ঝরনা সংরক্ষণ করা দরকার। এ জন্য বনায়নের বিকল্প নেই। কিন্তু বনায়ন করতে গেলে বাধা দিতে যায় আঞ্চলিক দলগুলো। পানির অপর নাম জীবন। তাই মানুষের জীবন বাঁচাতে কেউ বাধা দিলে ছাড় দেয়া হবে না। জনগনের দ্বারা নির্বাচিত সরকার, জনগনের সরকার, তাই জনগনের জানমাল রক্ষার জন্য সরকারের যা করা দরকার তাই করবে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড আয়োজিত ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে টেকসই পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা’ শীর্ষক দিনব্যাপী  সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশেসিং এমপি একথা বলেন।


মন্ত্রী বীর বাহাদুর আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শান্তি চুক্তি হয়েছে। এরপর আর পাহাড়ে কোনো ধরনের অস্ত্র থাকার কথা নয়। রাজনীতির নামে যেসব অস্ত্র ব্যবহার করা হচ্ছে, সেগুলো অবৈধ। যারা অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করছে, তারা সন্ত্রাসী। অবৈধ অস্ত্র দিয়ে পাহাড়ে হত্যা, অপহরণসহ বিপুল চাঁদাবাজি হচ্ছে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এসব কর্মকান্ড সমূলে উৎপাটন করা হবে। জনগণ ক্ষেপলে কারও রক্ষা নেই।

তিনি আঞ্চলিক দলগুলোর প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, পাহাড়ে এত চাঁদাবাজি হচ্ছে- অথচ দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত বা দুস্থ অসহায় মানুষের সহায়তার জন্য কারও কাছে কী এক বস্তা চাল পাঠিয়েছেন ? গরিব ছাত্রছাত্রী কাউকে কোনো বই কিনে দিয়েছেন ? এখন ডেঙ্গুর প্রকোপ চলছে, আক্রান্ত কারও চিকিৎসার জন্য কোনো ওষুধ কিনে দিয়েছেন ? এসব চাঁদাবাজি কার জন্য ? আপনারা রাজনীতি করেন না। ব্যক্তির স্বার্থনীতিতে জড়িত। এটা অন্যায়। অন্যায়কারী কেউ টিকতে পারবেন না।



পাহাড়ের রাজনীতি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions