শুক্রবার | ২৭ জানুয়ারী, ২০২৩

শীতকালীন সবজির বাম্পার ফলনের আশা কৃষকদের

প্রকাশঃ ২৪ জানুয়ারী, ২০২৩ ০৩:৫৪:১৮ | আপডেটঃ ২৭ জানুয়ারী, ২০২৩ ০৩:৩৬:২৪

সিএইচটি টুডে ডট কম, লংগদু (রাঙামাটি)শীতকালীন সবজি চাষ করে লাভবান হচ্ছেন স্থানীয় কৃষকরা। সারি সারি শীতকালীন সবজি ক্ষেতে সবজির বাম্পার ফলনই বলে দেয় কৃষকের মুখে হাসি

 

মাচায় মাচায় ঝুলছে লাউ, শিম, পটল, শসা করলা। কোথাও আবার ওলকপি, বাঁধাকপি, ফুলকপি, বেগুন, মিষ্টি কুমড়া, লাল শাকসহ নানা রকমের নতুন নতুন শীতের সবজি ক্ষেত। এমন সবুজ ক্ষেতের দৃশ্য এখন হরহামেশাই চোখে পড়ছে রাঙামাটির লংগদু উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে

 

চলতি মৌসুমে লংগদুতে বাণিজ্যিক ভাবে সবজি চাষের বাম্পার ফলনে ভালো লাভের আশা করছেন কৃষকরা

 

উপজেলার বগাচতর, ভাসান্যাদম, আটারকছড়া গুলশাখালী ইউনিয়নে ব্যাপক হারে বাণিজ্যিক ভাবে সবজি চাষ হচ্ছে। সবজি লংগদুর চাহিদা মিটিয়ে জেলা দেশের বিভিন্ন বাজারেও বিক্রি হচ্ছে। এলাকার সবজির মান ভালো হওয়ায় সবজি ব্যবসায়ীরা জমি থেকে সবজি ক্রয় করে দেশের বিভিন্ন বাজারে নিয়ে বিক্রি করছেন

 

কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে লংগদু উপজেলায় ৭০০' হেক্টর জমিতে শীতকালীন সবজির আবাদ হয়েছে। শীতকালীন সবজি আবাদে লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছিল ' ৫০ হেক্টর। হেক্টর প্রতি প্রায় ১০টন করে সবজি উৎপাদন হওয়ার আশা করছে উপজেলা কৃষি অফিস। লক্ষ্য মাত্রা অনুযায়ী সবজি উৎপাদন হলে মৌসুমে কৃষকরা ভালো লাভবান হবে বলে ধারণা করছে উপজেলা কৃষি অফিস

 

বগাচতরের মারিশ্যাচর এলাকার কৃষক আমান উল্লাহ জানান, চলতি মৌসুমে তিনি উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শ সহযোগিতা নিয়ে বিঘা জমিতে শীতকালীন সবজি চাষ করেছেন। তিনি এবার ওলকপি, ফুলকপি, বাঁধাকপি, লাউ, টমেটো কাঁচা মরিচের চাষ করেছেন। ফলন ভালো হয়েছে

 

তিনি আরও বলেন, গতবছর তিনি সবজি উৎপাদন করে প্রায় লাখ টাকা আয় করেন। মৌসুমে তার সবজি উৎপাদন আরও বেশি হবে বলে আশা করছেন। তবে বছর বীজের দাম বেশী হওয়ায় অন্যান্য খরচ বেড়ে যাওয়ায় লাভ কম হবে বলে ধারণা করছেন। তার উৎপাদিত সবজি জমিতেই বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন এলাকা থেকে পাইকারী সবজি ব্যবসায়ীরা ক্ষেতে এসে উৎপাদিত সবজি দেখে দামদর করে এখান থেকেই নিয়ে যাচ্ছেন

 

আটারকছড়ার কারবারি পাড়া এলাকার মনোরঞ্জন চাকমা বলেন, আমি এবার বিঘা জমিতে শীতকালীন সবজি চাষ করছি। এবার ধনিয়াপাতা, বাধাকপি, ওলকপি, ফুলকপি, গাজর, কাচামরিচ শিমের চাষ করছি। ফলন ভালো হয়েছে, আশা করছি সবজি বিক্রি করে ভালো লাভবান হবো

 

তিনি আরও বলেন, আমাকে উপজেলা কৃষি অফিস থেকে বিভিন্ন পরামর্শ সহযোগতিা করছে। আমি উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতায় এবার কৃষি লোন পেয়েছি। এতে ভালো ভাবে সবজি চাষ করতে আমার আর কোন সমস্যা হবেনা

 

লংগদু উপজেলা উপ সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা রতন চৌধুরী বলেন, অন্যান্য বছরের চেয়ে লংগদুতে এবার শীতকালীন সবজি চাষ বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা আশা করছি কৃষকরা মৌসুমে শীতকালীন সবজি চাষ করে ভালো লাভবান হবেন। শীতকালীন সবজি চাষ সফল করার লক্ষ্যে আমরা নিয়মিত কৃষকদের বিভিন্ন পরামর্শ, আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার এবং কোন ধরনের সবজিতে কি সার কীটনাশক ব্যবহার করে লাভবান হবে সে বিষয় সবসময় সঠিক পরামর্শ দিচ্ছি

 

তিনি আরও বলেন, আমরা কৃষকদের বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকি। এজন্য প্রতিটি ইউনিয়নে কৃষি কর্মকর্তা কর্মচারিরা কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা বিভিন্ন সময় কৃষি প্রণোদনা কৃষি পূনর্বাসন প্রকল্পের আওতায় সরিষা বীজ, ভুট্টা বীজ, গম বীজ, মরিচের বীজ, ডিএপি এমওপি সার বিনামূল্যে কৃষকদের সরবরাহ করে থাকি

 

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions