শনিবার | ১৮ মে, ২০২৪

আগুনে পুড়ে ছাই চম্পাতলী বৌদ্ধ বিহারের চেরাং ঘর

প্রকাশঃ ১৬ এপ্রিল, ২০২৪ ০৬:৪২:২৪ | আপডেটঃ ১৭ মে, ২০২৪ ০২:৪৪:৫৬
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান।  বান্দরবানের লামা পৌরসভার চম্পাতলী বৌদ্ধ বিহারের চেরাং ঘরে (বিহারের আবাসিক ভান্তেদের থাকার ঘর)  আগুন লেগেছে। আগুনে বৌদ্ধ বিহারের দোতলার চেরাং ঘরটি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) দুপুর ২টায় বৌদ্ধ বিহারে এই আগুনের ঘটনা ঘটে। প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান ৫ লাখ টাকা বলে ধারণা করছে বৌদ্ধ বিহার কর্তৃপক্ষ।

ধারণা করা হচ্ছে চেরাং ঘরের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। স্থানীয় অনেকের ধারণা, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকেও আগুন লাগতে পারে। মারমাদের সাংগ্রাই অনুষ্ঠানের সময় এই অগ্নিকান্ডের ঘটনায় বৌদ্ধ বিহারের আয়োজন অনেকটাই ম্লান হয়ে এসেছে।

এদিকে অগ্নিকান্ডের সংবাদ পাওয়া মাত্র চাম্পাতলী ১২ আনসার ব্যাটালিয়ন সদস্যরা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। পরে লামা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সাথে লামা উপজেলা আনসার-ভিডিপি, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও স্থানীয় জনগণ আগুন নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। প্রায় ঘন্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয় আর ততক্ষনে বৌদ্ধ বিহারের চেরাং ঘর আগুনে পুড়ে যায়।

চম্পাতলী বৌদ্ধ বিহারের পৃষ্ঠপোষক অংথোয়াইহ্লা মার্মা জানান, আমরা সবাই বিহারে পুজা অর্চনা করছিলাম, কিভাবে আগুন লেগেছে জানিনা, বড় ক্ষতির হাত থেকে বৌদ্ধ বিহার রক্ষা পেয়েছে।
এদিকে অগ্নিকান্ডের সংবাদ পেয়ে লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল, লামা পৌরসভার মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, ১২আনসার ব্যাটালিয়ন এর অধিনায়ক নুরে আলম সিদ্দিকী, ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাহেদ উদ্দিন, মিলকী রাণী দাশ সহ উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

লামা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা সাখাওয়াত হোসেন জানান, সংবাদ পাওয়ার ১০ মিনিটের মধ্যে আমাদের টিম দুইটি গাড়ি নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়, ঘন্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমান এখনো নির্ণয় করা যায়নি।


বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions