রবিবার | ২৬ জানুয়ারী, ২০২০
পার্বত্য চুক্তির ২২ বছর পূর্তিতে জনসংহতি সমিতির সংবাদ সম্মেলন

পাহাড়ে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠায় চুক্তির যথাযথ ও পূর্নাঙ্গ বাস্তবায়নের দাবী

প্রকাশঃ ৩০ নভেম্বর, ২০১৯ ০৭:১৯:৪০ | আপডেটঃ ২৬ জানুয়ারী, ২০২০ ১০:৫৫:০৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, খাগড়াছড়ি। পার্বত্য চট্টগ্রামে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে অনতিবিলম্বে চুক্তির যথাযথ ও পূর্নাঙ্গ বাস্তবায়নের দাবী জানিয়েছে  সংবাদ সম্মেলন করেছে জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা)। শনিবার দুপুরে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের একটি রেস্তোরায় এ সংবাদ সম্মেলনে করে জনসংহতি সমিতি(এমএন লারমা দল)।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে দলের কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা।

লিখিত বক্তব্যে ভূমি কমিশনকে কার্যকর করা, পুলিশ, ভূমি ও বনসহ গুরুত্বুপূর্ন বিভাগসমূহ আঞ্চলিক পরিষদ ও জেলা পরিষদে হস্তান্তর এবং স্থায়ী বাসিন্দাদের নিয়ে ভোটার তালিকায় জেলা পরিষদ ও আঞ্চলিক পরিষদের নির্বাচন দেয়াসহ ৭ দফা দাবী উত্থাপন করা হয়েছে। পার্বত্য চুক্তির ২২ বছর পূর্তি উপলক্ষে দলটির পক্ষ থেকে  ২ রা ডিসেম্বর র‌্যালী আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন দলের কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা।

 এসময় তিনি বলের সরকার চুক্তি অধিকাংশ ধারা বাস্তবায়ন করছে ঠিকই কিন্তু ভুমি,স্থানীয় পুলিশ ও বনসহ মৈলিক  বিষয় গুলো এখনো বাকী। তবে তারা আশা করেন বর্তমান সরকার যেহেতু চুক্তি করেছে তাই বর্তমান সরকারই চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়ন করবে। তিনি আরো বলেন সরকার চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়ন করলে পাহাড়ে আর অশান্তি থাকবেনা।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিমল কান্তি চাকমা, সহ-সাধারণ সম্পাদক সুভাষ কান্তি চাকমা, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সুদর্শন চাকমা, সদস্য দূর্গা রানী চাকমা  খাগড়াছড়ি জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সিন্দু কুমার চাকমা প্রমূখ।

এ সময় সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের জবাবে জনসংহতি সমিতি নেতারা বলেছেন, একমাত্র চুক্তির পূর্নাঙ্গ বাস্তবায়নের মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামে চলমান সংঘত, সহিংসতা বন্ধ করা সম্ভব হবে।

এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions