রবিবার | ১৭ নভেম্বর, ২০১৯

রাঙামাটি পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী রোমান

প্রকাশঃ ১২ অক্টোবর, ২০১৯ ১১:১৪:৫৩ | আপডেটঃ ১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০৯:৫৭:৩৭
শাহ আলম, সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি।  কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের নির্দেশনায় সারা দেশের ন্যায় রাঙামাটিতেও আওয়ামীলীগের সম্মেলন ও কাউন্সিলের হাওয়া বইছে। রাঙামাটিতে আওয়ামীলীগের ১০টি উপজেলা ইউনিট, ১টি পৌর ইউনিট ও ৬টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ।

কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের নির্দেশনায় ৩০ অক্টোবর ২০১৯ইং তারিখের মধ্যে রাঙামাটির সকল ইউনিটের কাউন্সিল শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ। ইতিমধ্যে রাঙামাটির সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের ৬টি ইউনিয়ননের সম্মেলন সম্পূর্ণ করা হয়েছে এবং অন্যান্য আঃলীগের প্রত্যেকটি উপজেলা ইউনিটের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করেছে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ।

তারই ধারাবাহিকতায় রাঙামাটিতে বইছে সম্মেলনের হাওয়া ও একই সাথে নেতা-কর্মীদের দৌড়ঝাপ। অনেকেই নিজের অবস্থান উল্লেখ করে আওয়ামীলীগের বিভিন্ন ইউনিটের প্রার্থী হিসেবে নিজে এবং সমর্থকরা প্রচারনা চালাচ্ছে।

রাঙামাটিতে আওয়ামীলীগের সম্মেলন ও কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে তরুণ রাজনীতিবিদ রাঙামাটি জেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি ও রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান শহীদুজ্জামান মহসীন রোমান রাঙামাটি পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন। তিনি রাঙামাটি পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচনে লড়াই করবেন বলে প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রোমান অতীতে রাঙামাটি শহর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

এমবিএ পাস করা রোমান রাঙামাটি শহরের অন্যতম স্বনামধন্য ব্যবসায়ী, দানবীর মরহুম হাজী মো. মহসিন কোম্পানীর মেঝ ছেলে। তার বড় ভাই মনিরুজ্জামান মহসিন রানা সাবেক জেলা পরিষদের সদস্য হিসেবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন।

সাবেক এ ছাত্রলীগ নেতা গতবার পৌরসভা নির্বাচনে আ’লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। কিন্তু দলের দিক-নির্দেশনা মেনে এবং দলের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দলের প্রার্থীর স্বার্থে নিজেকে প্রত্যাহার করেন এবং দলের স্বার্থে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে কাজ করেছেন। গত ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদীয় নির্বাচনে দলের এমপি প্রার্থী দীপংকর তালুকদারকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়িয়েছেন। দিন-রাত কাজ করেছেন নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করার জন্য।

আওয়ামীলীগের কাউন্সিলে সাধারণ সম্পাদক রোমান সম্পর্কে:

অনেক রাজনীতিবিদ প্রাথমিক শিক্ষার গন্ডি পেরুতে না পারলেও রোমান কিছুটা ব্যতিক্রম; তিনি উচ্চ শিক্ষিত। সম্প্রতি তিনি একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সফলতার সাথে এমবিএ পাশ করেছেন।

রোমান শুধু রাজনীতির মধ্যে নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখেনি। স্থানীয় পরিবহন সেক্টরে নিজেকে জড়িয়ে এ খাতের নানা সমস্যা সমাধান এবং উন্নয়নে অনন্য ভুমিকা রেখেছেন।

সমাজের দুস্থ, অসহায় পরিবারদের সাহায্য-সহযোগিতা করার লক্ষ্যে গড়ে তুলেছেন বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন। এ সংগঠনের মাধ্যমে অসহায় পরিবারের অনেক বিয়ে উপযুক্ত নারীকে আর্থিক সহযোগিতা দিয়ে বিয়ের ব্যবস্থা, মেধাবী শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহযোগিতা এবং রোগীদের চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করেছেন।

এসব সেবার জন্য তিনি সংগঠনের পাশাপাশি ব্যক্তি উদ্যোগেও অনেক দু:স্থ, অসহায় পরিবারের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তার এমন সামাজিক, মানবিক কাজগুলো তাকে প্রার্থী হিসেবে সবার সেরা একবাক্য বলা চলে।

তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের কাছে রাঙামাটি পৌর অওয়ামীলীগের রোমানই যোগ্য প্রার্থী:

অতীতে অনেক রাজনীতিবিদ, অনেক প্রার্থীর সামাজিক কর্মকান্ডে তেমন কোন উল্লেযোগ্য ভূমিকা লক্ষ্য করা না গেলেও এসব প্রার্থীর মধ্যে জেলার ব্যবসায়ী পরিবারের সন্তান তরুণ ব্যবসায়ী রোমান অন্যান্য প্রার্থীদের থেকে ভিন্নতর। তিনি যেমন উচ্চ শিক্ষিত তেমনি অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সক্ষমতা দেখিয়েছেন।

বর্তমানে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষার উন্নয়নে অভূতপূর্ব উন্নতি ঘটাচ্ছেন। আর এ ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে রোমানের কোন বিকল্প নেই। কেননা রোমান উচ্চ শিক্ষিত । এছাড়া বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন সৈনিক হিসেবে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের সাথে নিজেকে সামিল করতে তিনি এবারের কাউন্সিলে লড়াই করবেন।

রাঙামাটিতে পৌর আওয়ামীলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদ-প্রার্থী হয়ে যুদ্ধে লড়বেন জানিয়ে শহীদুজ্জামান রোমান বলেন, আওয়ামী লীগের কাউন্সিলের আগ পর্যন্ত দলে শুদ্ধি অভিযান চলবে। আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলোও এর আওতায় পড়বে। চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, অস্ত্রবাজি, ইয়াবাখোর ও মাদক ব্যবসার সঙ্গে দলের কেউ জড়িত থাকলে তাকে ছাড় দেয়া হবে না ইতিমেধ্য কেন্দ্র থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আমি চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, অস্ত্রবাজি, ইয়াবাখোর ও মাদক ব্যবসার সঙ্গে কোনটির সঙ্গে জড়িত ছিলাম না, ভবিষতেও থাকবো না উল্লেখ করে সকল নেতা-কর্মীদের সহযোগীতা ও দোয়া কামনা করেন তিনি।

তিনি কাউন্সিল প্রসঙ্গে বলেন, রাঙামাটি পৌর আওয়ামীলীগের কাউন্সিলরে অনেকের নাম শোনা যাচ্ছে। তবে পৌর আওয়ামীলীগের কমিটি মনোনীত না নির্বাচিত হবে, তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবেন জেলা আওয়ামীলীগ। গোপন ব্যালটের মাধ্যমে কমিটি নির্বাচন করলে ভালো হবে। এতে দলে কোনো অসন্তোষ থাকবে না তিনি মত প্রকাশ করেন।


পাহাড়ের রাজনীতি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions