সোমবার | ১৫ জুলাই, ২০২৪

ঈদের ছুটিতে পর্যটকদের বরণ করতে প্রস্তুুত রাঙামাটি

প্রকাশঃ ১৬ জুনe, ২০২৪ ০৬:৩০:৩৩ | আপডেটঃ ১৪ জুলাই, ২০২৪ ১০:১৩:৪২
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে টানা পাঁচ দিনের ছূটিতে পর্যটকদের বরণ করতে প্রস্তুত পর্যটন শহর রাঙামাটি। ইতিমধ্যে শহরের সরকারী পর্যটন মোটেলসহ কয়েকটি হোটেলে শতকরা ৫০ থেকে ৬০ ভাগ রুম বুকিং হলেও অধিকাংশ হোটেল ও মোটলেগুলোতে শতকরা ২০ শতাংশ বুকিং হয়েছে। পর্যটন সাজেকেও অগ্রিম বুকিং কমে গেছে। আবার অনেক পর্যটক অগ্রিম বুকিং বাতিলও করে দিচ্ছেন।  তবে এবছর ঈদের ছুটি বর্ষা মৌসুমসহ অন্যান্য কারণে হাটেল ও মোটলেগুলোতে অগ্রিম বুকড কমে গেছে বলে পর্যটনের সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন। এবারের রাঙামাটি হোটেলগুওেলাতে ৩০শতাংশ ছাড় দেওয়ার ঘোষনা দিয়েছে।

পর্যটন ব্যবসার সাথে জড়িত সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রতি বছরের ন্যায় পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে রাঙামাটির প্রাকৃতিক অপরুপ সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে ছুটে আসেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভ্রমন পিপাসু লোকজন। কিন্তু এবারের ভিন্ন রুপ। এবার টানা পাঁচ দিনের ছুটি থাকলেও ভ্রমণ পিপাসু পর্যটকদের পাহাড়ে অবকাশ যাপনে তেমন একটা সাড়া মিলছে না। গত বছরে ঈদের ছুটিতে রাঙামাটি শহরের হোটেল-মোটেলগুলোতে অগ্রিম ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ অগ্রিম বুকড হলেও এবারে এবারের কমে গেছে। তবে ইতোমধ্যে শহরের হোটেল-মোটেগুলো পর্যটক বরণের যাবতীয় প্রস্তৃতি সম্পন্ন করেছে। রাঙামাটি সরকারী পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্সে ঝুলন্ত সেতুর ও রাস্তাঘাট মেরামত ও মোটেলের রুম পরিস্কারচ্ছন্নতার কাজ সম্পুর্ন শেষ হয়েছে। এখন শুধু পর্যটকদের বরণ করে নেওয়ার পালা। এছাড়া ইতোমধ্যে এ মোটেলে ৬০শতাংশ বুকড রয়েছে। এছাড়া শহরের ভালোমানের কিছু সংখ্যক হোটেল-মোটেলে শতকরা ৫০-৬০ ভাগ রুম অগ্রিম বুকড হলেও অধিকাংশ হোটেলগুলোতে ২০শতাংশ বুকড হয়েছে।  

এদিকে, এবার বর্ষা মৌসুমে রাঙামাটির প্রকৃতি তার অপন রুপে সেজেছে। কাপ্তাই হ্রদে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। শুভলং ঝর্না তার পুরনো প্রাকৃতিক রুপ ফিরে পেয়েছে। তাই সবমিলিয়ে পর্যটকরা এবার রাঙামাটির প্রকৃতির সৌন্দর্য্য অপন মনে উপভোগ করতে পারবেন। রাঙামাটি পর্যটনের আকর্যনীয় স্পটের মধ্যে রয়েছে,পর্যটনের ঝুলন্ত সেতু, শুভলং-এর মনোমুগ্ধকর ঝর্ণা, রাজ বন বিহার,জেলা প্রশাসনের বাংলো, কাপ্তাই হ্রদে নৌ ভ্রমণ, পুলিশের পলওয়েল পার্ক, বীর শ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফের সমাধি সৌধ, কাপ্তাই-আসামবস্তি সড়কসহ ইত্যাদি। এছাড়াও  রাঙামাটি শহরের বাইরে  বাঘাইছড়ি উপজেলার পর্যটন সাজেক ভ্যালী, কাপ্তাই উপজেলায় কর্ণফুলী নদীর তীরে গড়ে উঠা আকর্যনীয় পর্যটন স্পট, কাপ্তাই জল বিদ্যূৎ উৎপাদন কেন্দ্র, কর্ণফূলী পেপার মিলস্ ও কাপ্তাই জাতীয় উদ্যোন ইত্যাদি।

সাজেক পর্যটনের হিলভিউ রিসোর্ট এর সত্বাধিকারী ইন্দ্র চাকমা জানান, অন্যান্য বছরগুলোতে সাজেক পর্যটনের হোটেল ও রিসোর্টগুলোতে ছুটির ১০ থেকে ১৫ আগে সব রুম অগ্রিম বুকড হতো। কিন্তু এবার ঈদের ছুটিতে পর্যটকদের রুম বুকড একেবারে কমে গেছে। তার রিসোর্টে ৩০ শতাংশ বুকড হয়েছে। এছাড়া যেসব এজেন্সি অগ্রিম রুম বুকড করেছে তারাও বাতিল করছে। ঈদের ছুটি  বর্ষা মৌসুম হওয়ার কারণে অগ্রিম বুকড হয়তো কমে গেছে।

হোটেল মতিমহলের ব্যবস্থাপক চন্দন দাশ জানান, এ পর্ষন্ত তার হোটেলে ২০ শতাংশ বুকড হয়েছে। অন্য বছরগুলোতে ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ বুকড থাকে। তার মতে অতিরক্তি গরম ও বর্ষা মৌসুমের কারণে এবারের বেশী সংখ্যক পর্যটকরা পাহাড়মুখী হচ্ছেন না।

হোটেল সাংহাই এর সত্বাধিকারী শরিফুল আলম সুমন জানান, তার হোটেলে ২০ শতাংশ বুকড হয়েছে। রাঙামাটি পর্যটনে শীত ও বর্ষা মৌসুমে পর্যটকদের বেড়ানো উপযুক্ত সময়। তবে এবারে কি অদৃশ্য কারণে বুকিং কমে গেছে।

হোটেল স্কয়ারের ব্যবস্থাপক মোঃ রায়হান জানান, তার হোটেলে ৫০ শতাংশ বুকিং হয়েছে। তবে গত বছর এর পরিমাণ ছিল ৮০ থেকে ৯৫ শতাংশ বুকিং হতো। কিন্তু এবারের অর্ধেকে নেমে এসেছে।

রাঙামাটি আবাসিক হোটেল মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মঈন উদ্দীন সেলিম জানান, বৃষ্টিপাতের কারণে কাপ্তাই হ্রদে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় হ্রদ ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য আপন মনে সেজেছে। ছুটিতে পর্যটকের সাড়া পাচ্ছি। শহরের ভালোমানের হোটেলগুলোতে ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ অগ্রিম বুকড হয়েছে। এছাড়া এবার পর্যটকদের জন্য ঈদের ছুটিতে হোটেল রুমে ৩০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

রাঙামাটি সরকারী পর্যটন কমপ্লেক্সের ব্যবস্থাপক আলোক বিকাশ চাকমা জানান,ঈদের ছুটিতে রাঙামাটি হলিডে পর্যটন কেন্দ্রে ইতোমধ্যে ঝুলন্ত সেতু ও রাস্তাঘাট মেরামত এবং মোটেলের যাবতীয় রুম পরিস্কার পরিচ্ছন্নতাসহ যাবতীয় কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ইতোমধ্যে শতকরা ৬০ ভাগ রুম বুকড হয়েছে। আশা করছি আরো বুকিং বাড়তে পারে।


রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions