সোমবার | ১৫ জুলাই, ২০২৪
বান্দরবানে জন্মাষ্টমী ২০২৩ ও

ভগবান শ্রীকৃষ্ণের ৫২৪৯তম শুভ আবির্ভাব তিথি উপলক্ষ্যে বিশেষ প্রার্থনা

প্রকাশঃ ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ০৮:৫২:১৭ | আপডেটঃ ১১ জুলাই, ২০২৪ ০৯:৩১:১২
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। বান্দরবানে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের ৫২৪৯ তম শুভ আবির্ভাব তিথি ও শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী ২০২৩ উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা ও বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
রোববার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বান্দরবান জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট এর আয়োজনে এই আলোচনা সভা ও বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত।

এসময় হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট এর ট্রাস্টি অমল কান্তি দাশ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো.সাইফুল ইসলাম। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো.ছালাউদ্দিন, শ্রী শ্রী রাধাগিরিধারী মন্দিরের অধ্যক্ষ রাধাগোবিন্দ দাশ, মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম-৬ষ্ঠ পর্যায়ের বান্দরবান জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক রিংকু কুমার শর্মা, বান্দরবান সার্বজনীন কেন্দ্রীয় দুর্গা মন্দিরের উপদেষ্ঠা দীলিপ চক্রবর্তী,বান্দরবান পৌরসভার কাউন্সিলর অজিত কান্তি দাশ, জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আনন্দ দাশসহ বান্দরবান জেলা সদরের বিভিন্ন মন্দিরের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো.সাইফুল ইসলাম বলেন, ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় রাখা এবং ধর্মীয় কর্মকান্ডের জন্য বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অক্লান্ত কাজ করে যাচ্ছেন। সকল ধর্মের মধ্যে যাতে সম্প্রীতি বজায় থাকে এবং একে অন্যের ধর্মের প্রতি যাতে শ্রদ্ধাশীল হয় সেজন্য সরকার বিভিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এসময় প্রধান অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো.সাইফুল ইসলাম আরো বলেন, সনাতনী সমাজের কল্যাণের জন্য বর্তমান সরকার ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতায় হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট এর সৃষ্টি করেছে আর এতে সনাতনী সমাজের উন্নয়ন তরান্বিত হচ্ছে।

সভায় সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে  হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট এর ট্রাস্টি অমল কান্তি দাশ বলেন, সকলের মধ্যে প্রেম ও ভালোবাসা জাগ্রত করতে হবে,আর সকলের মধ্যে একতা সৃষ্টি করে আমাদের আরো বেশি বেশি ধর্মীয় চর্চা অনুশীলন করতে হবে। শুধু নিজে ভালো হলে হবে না, সমাজের সবাইকে ভালো রাখতে আমাদের ধর্মের প্রতি আরো আনুগত্য বাড়াতে হবে এবং ধর্মীয় পুস্তকপাঠে মনোযোগী হতে হবে। ট্রাস্টি অমল কান্তি দাশ আরো বলেন, শান্তি আর সম্প্রীতির এক অন্যন্য উদাহরণ বান্দরবান আর এই বান্দরবানে যাতে ১২টি ভাষার জনগণ একসাথে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নিজ নিজ ধর্মীয় উৎসবগুলো উদযাপন করে সুন্দরভাবে বসবাস করতে পারে সেজন্য সকলের মধ্যে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন আরো দৃঢ় করতে হবে। বর্তমান সরকার সকল ধর্মের উন্নয়ন করে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করে তিনি আগামীতেও এই সরকারের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেন এবং বাংলাদেশে যাতে সবাই সুন্দরভাবে বসবাস করতে পারে সেজন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা জানান।

সভার শেষ পর্যায়ে উপস্থিত সকলে এক ধর্মীয় প্রার্থনায় অংশ নেয় এবং প্রার্থনায় পৌরহিত্য করেন বান্দরবান শ্রী শ্রী রাধাগিরিধারী মন্দিরের অধ্যক্ষ রাধাগোবিন্দ দাশ ।

বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions