মঙ্গলবার | ০২ মার্চ, ২০২১
বান্দরবানের

নতুন সাজে সজ্জিত হচ্ছে নাইক্ষংছড়ি উপবন পর্যটন কেন্দ্র

প্রকাশঃ ২২ জানুয়ারী, ২০২১ ০৯:১৮:৪৫ | আপডেটঃ ০১ মার্চ, ২০২১ ০১:৪৭:৫৬
কৌশিক দাশ, সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। পর্যটন জেলা বান্দরবানের নাইক্ষংছড়ি উপজেলার উপবন পর্যটন কেন্দ্র। প্রতিদিন এখানে পর্যটকদের আগমন ঘটলে ও এবার কর্তৃপক্ষ পর্যটকদের বাড়তি বিনোদনের জন্য তৈরি করছে নানান স্থাপনা,আর শৈল্পিক এই নতুনত্বে আসবে আরো অসংখ্য পর্যটক এবং বাড়তি বিনোদনের পাশাপাশি ভ্রমনে আরো বাড়তি আনন্দ উপভোগ করতে পারবে পর্যটকরা এমনটাই বলছে কর্তৃপক্ষ।

পার্বত্য জেলা বান্দরবানের নাইক্ষংছড়ি উপজেলার উপবন পর্যটন কেন্দ্র। নাইক্ষ্যংছড়ি মূল বাজার হতে মাত্র ১ কিলোমিটার দুরত্বে অবস্থিত মনোরম এই প্রাকৃতিক সৌন্দর্র্য্যময় স্থানটি। এই পর্যটনকেন্দ্রে রয়েছে বিশাল লেক আর লেকের ওপর রয়েছে আকর্ষনীয় ঝুলন্ত সেতু। শুধু তাই নয় উপবন পর্যটনটি নতুনভাবে সজ্জিত করার জন্য প্রবেশ পথ থেকে শুরু করে বিভিন্ন পয়েন্টে শৈল্পিকরুপে নতুন রুপে তৈরি হচ্ছে রেলিং , পর্যটকদের চলাচলের জন্য আকর্ষনীয় সিঁড়ি , চোখ জুড়ানো আকর্ষনীয় চেয়ার-টেবিল, নতুন সাংস্কৃতিক মঞ্চ এবং শিশুদের শিশু পার্কসহ নির্মাণ করা হচ্ছে আরো নতুন নতুন ভিউ পয়েন্ট।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের পাশাপাশি এই পর্যটনকেন্দ্রে নতুন নতুন শৈল্পিক অবকাঠামো স্থাপন করায় মুগ্ধ পর্যটকরা। উপবন পর্যটন কেন্দ্রে ঢাকা থেকে ভ্রমনে আসা পর্যটক জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন,বান্দরবানের যে কয়েকটি পর্যটনকেন্দ্র রয়েছে তার মধ্যে নাইক্ষংছড়ির উপবন পর্যটন কেন্দ্রটি বেশ সুন্দর। জান্নাতুল ফেরদৌস আরো বলেন,কম খরচে স্বল্প দূরতে এই পর্যটনকেন্দ্র ভ্রমনে মিলবে অনাবিল প্রশান্তি।

উপবন পর্যটন কেন্দ্রে ভ্রমনে আসা পর্যটক মো.রায়হান বলেন,পর্যটকদের চলাচলের জন্য আকর্ষনীয় সিঁড়ি,চোখ জুড়ানো আকর্ষনীয় চেয়ার-টেবিল, নতুন সাংস্কৃতিক মঞ্চ এবং শিশুদের শিশু পার্কসহ বিভিন্ন কিছু নির্মাণ করা হচ্ছে এতে আরো পর্যটকদের আগমন ঘটবে এবং পর্যটকরা আগের চেয়ে নতুন রুপে এই উপবন পর্যটন কেন্দ্রটিকে উপভোগ করবে।

সুত্রে জানা যায়,১৯৯৬ সালে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় পর্যটনস্পট হিসেবে গড়ে উঠে উপবন পর্যটন কেন্দ্রটি আর সেই থেকে ধীরে ধীরে পরিচিতি লাভ করে এই পর্যটনকেন্দ্র। একাধিক টিভি নাটক, চলচিত্র ও বিজ্ঞাপন চিত্রায়িত হয়েছে এই উপবনে আর এই পর্যটন কেন্দ্রে এখন প্রতিদিন ভিড় করছে দেশি বিদেশী অসংখ্য পর্যটক।

এদিকে উপবন পর্যটন কেন্দ্রটি পার্বত্য জেলা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় হলেও কক্সবাজার থেকে মাত্র ৩২কিলোমিটার দুরত্বে অবস্থিত তাই দেশের বিভিন্নস্থান থেকে আসা পর্যটকদের এই পর্যটন কেন্দ্রে ভ্রমন করতে নানামুখী উন্নয়ন কাজ দ্রুত বাস্তবায়ন করে পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন অব্যহত রয়েছে বলে জানান প্রশাসনের কর্মকর্র্র্তারা।




নাইক্ষংছড়ির উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন কচি,তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই উপবন পর্যটন কেন্দ্রটি নতুনভাবে সজ্জিত করার নানা পরিকল্পনা গ্রহণ ও তা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন কচি জানান, পর্যাপ্ত বাজেট পেলে উপবন পর্যটন কেন্দ্রটি আরো সুন্দরভাবে সাজানো হবে। একটি কনফারেন্স রুম স্থাপন করা হবে,পাশাপাশি একটি রেস্টুরন্ট তৈরিসহ আরো বেশ কিছু ভিউ পয়েন্ট তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন কচি আরো জানান, উপবন পর্যটন কেন্দ্রে বেশ কিছু উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে এবং এই উন্নয়ন প্রকল্পগুলো সব বাস্তবায়ন হলে আগের চেয়ে আরো আকর্ষনীয় হয়ে ওঠবে উপবন পর্যটন কেন্দ্রটি।

বান্দরবানের নাইক্ষংছড়ির উপবন পর্যটন কেন্দ্রটি নতুনভাবে সজ্জিত হলে দুর্গম এই উপজেলার উন্নয়নের পাশাপাশি এলাকার অর্থনৌতিক অবস্থার ব্যাঁপক উন্নয়নের আশাবাদ সংশ্লিষ্টদের।


বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions