মঙ্গলবার | ০১ ডিসেম্বর, ২০২০

নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১ : ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধার

প্রকাশঃ ২১ অক্টোবর, ২০২০ ০১:৩৬:২৯ | আপডেটঃ ৩০ নভেম্বর, ২০২০ ০৩:৩৭:৪৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নের বাইশফাড়ি সীমান্তে বিজিবি’র সাথে বন্ধুকযুদ্ধে মোঃ আদহাম (২৩) নামের এক রোহিঙ্গা ইয়াবা কারবারি নিহত হয়েছে। সে তুমব্রু কোনাপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরের আবুল হাশেমের ছেলে।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় তৈরী একনলা বন্দুক, ২ রাউন্ড কার্তুজ ও ৪০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। ২১ (অক্টোবর) বুধবার ভোরে সীমান্তের ৩৫নং পিলারের সন্নিকটে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে৷

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবি’র সুত্রে জানা যায়, বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমঘুম ইউনিয়নের তুমব্রু বাইশফাড়ি সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমার থেকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা আসার খবর পেয়ে বিজিবি সেখানে অবস্থান নেয়। এসময় ১০/১২জনের একটি দল মিয়ানমার থেকে আসতে দেখে বিজিবি তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করলে ইয়াবা কারবারিরা টহল দলকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলিবর্ষণ শুরু করলে টহল দল তাদের জানমাল রক্ষার্থে পাল্টাগুলি করে। এসময় ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পাহাড়ী জঙ্গলের মধ্য দিয়ে মিয়ানমারের ভিতরে পালিয়ে যায়।

পরে টহল দল ঘটনাস্থল থেকে মোঃ আদহাম (২৩) নামের এক রোহিঙ্গাকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে  কক্সবাজার জেলার উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

এদিকে ঘটনাস্থল থেকে বিজিবির সদস্যরা দেশীয় তৈরী একনলা ১টি বন্দুক,২রাউন্ড কার্তুজ ও ৪০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে, উদ্ধারকৃত ইয়াবার মূল্য প্রায় ১কোটি ২০ লক্ষ টাকা।

বান্দরবানের নাইক্ষংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন সিকদার জানান, আমরা ঘটনা সর্ম্পকে জেনেছি এবং নিহত রোহিঙ্গা মোঃ আদহাম এর লাশ কক্সবাজার জেলার উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ রাখা হয়েছে, পরর্বতী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions