বৃহস্পতিবার | ১৭ অক্টোবর, ২০১৯

রাঙামাটিতে সমন্বিত খামার ব্যবস্থাপনা বিষয়ে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত

প্রকাশঃ ২৪ জুলাই, ২০১৯ ০৬:১৭:০৬ | আপডেটঃ ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ০২:০৪:৩৬
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেছেন, সমতলের তুলনায় পার্বত্য জেলাগুলোর মানুষ শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি’সহ বিভিন্ন সেক্টরে এখনো অনেক পিছিয়ে রয়েছে। এই পশ্চাদপদ পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীদের এগিয়ে নিতে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন দাতা সংস্থা কাজ করে যাচ্ছে। সরকারের এ লক্ষ্য উদ্দেশ্যকে সফল করতে হলে সরকার ও দাতা সংস্থাদের ন্যয় আমাদের সকলকে সমন্বিতভাবে কাজ করে যেতে হবে।

বুধবার (২৪জুলাই) সকালে ড্যানিডা অর্থায়নে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্প(৩য় পর্যায়) এর আওতায় সমন্বিত খামার ব্যবস্থাপনার কৃষক মাঠ স্কুল বিষয়ে সরকারী বিভাগের কর্মকর্তাগণের দিনব্যাপী ওরিয়েন্টেশন কর্মসূচি উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের আয়োজনে এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ও এসআইডি-সিএইচটি, ইউএনডিপি’র সহযোগিতায় পরিষদ সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন  কৃষি বিভাগের আহ্বায়ক ও রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা।

এসময় প্রাণীসম্পদ বিভাগের আহ্বায়ক ও রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য রেমলিয়ানা পাংখোয়া, এসআইডি-সিএইচটি, ইউএনডিপি’র রাঙামাটি জেলা ব্যবস্থাপক ঐশ^র্য্য চাকমা, কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক পবন কুমার চাকমা, জেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ বরুন কুমার দত্ত, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইয়াছিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্পের জেলা কর্মকর্তা সুকিরন চাকমা।

অনুষ্ঠানে পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, ইউএনডিপি’র এই প্রকল্পটির মাধ্যমে পার্বত্যঞ্চলের কৃষিক্ষেত্রে অনেক উন্নতি হয়েছে। তিনি বলেন, পূর্বে বাইরের জেলা থেকে ফলমূল না আসলে আমরা খেতে পেতাম না। কিন্তু সরকার ও দাতাসংস্থাগুলোর আন্তরিকতার বর্তমানে এখানকার কৃষক ও খামারীরা আধুনিক পদ্ধতি ও আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহারের ফলে ফল-ফসল, মৎস্য ও প্রাণীসম্পদে উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। এখানকার উৎপাদিত ফল ও মাছ নিজ জেলার চাহিদা মিটিয়ে বাইরের জেলাতে রপ্তানি হচ্ছে। আর এগুলো সম্ভব হয়েছে কৃষক ও কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের আন্তরিকতায়। এ পশ্চাদপদ এলাকার মানুষদের ভাগ্য পরিবর্তনে কৃষি কর্মকর্তাদের সবসময় তাদের পাশে থেকে পরামর্শ প্রদান করার আহ্বান জানান চেয়ারম্যান।

উন্নয়ন খবর |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions