বুধবার | ১৭ জুলাই, ২০১৯

থানচিতে জীপ খাদে পড়ে ২জন নিহত, লামায় আহত ২

প্রকাশঃ ১৭ জুনe, ২০১৯ ১০:৩১:৩৭ | আপডেটঃ ১৬ জুলাই, ২০১৯ ০৭:১৪:৪৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। বান্দরবানের থানচিতে জীপ খাদে পড়ে  ২জন নিহত হয়েছে। এসময় আহত হয়েছে আরো ৫জন। অন্যদিকে লামায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২জন গুরুতর আহত হয়েছে।  থানচিতে নিহতরা হচ্ছে  শ্রমিক  মোঃ কালাম (৪০) ও কাপরু পাড়ার ব্যবসায়ী সন্তুষ চাকমা (৪৫)। সোমবার সন্ধ্যায় সাড়ে ৬টায় থানচি উপজেলার বলিবাজার এলাকায়  এই ঘটনা ঘটে।     
 
স্থানীয়রা জানায়, বান্দরবান থেকে একটি জীপ ৬জন যাত্রী নিয়ে থানচি যাওয়ার পথে বলিবাজারের কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ২শ ফুট গভীর খাদে পড়ে গেলে ঘটনাস্থলে দুই জন নিহত হয়। এসময় আহত হয়েছে চারজন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে থানচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ জুবায়েরুল হক বলেন, জীপ খাদে পড়ে দুই জন নিহত হয়েছে। নিহতদের লাশ উদ্ধার করে  বান্দরবান সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে লামায় মাহিন্দ্র ও মোটর সাইকেল মুখামুখি সংঘর্ষে দুইজন গুরুতর আহত হয়েছে। সোমবার (১৭ জুন) বিকাল ৫টায় লামা-সুয়ালক সড়কের (বাইশপাড়ি যাত্রী ছাউনি সংলগ্ন) এই দুর্ঘটনা ঘটে।

এসময় মোটর সাইকেল যাত্রী উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের বাইশপাড়ি মার্মা পাড়ার মৃত প্রু থোয়াই মার্মার ছেলে মিজ্ঞাউ মার্মা (৪২) ও বমু বিলছড়ি ইউনিয়নের পশ্চিম পাড়ার মৃত দলিলুর রহমানের ছেলে মোটর সাইকেল ড্রাইভার আবু শামা (৫০) গুরুতর আহত হয়েছে। স্থানীয়রা দ্রুত আহতদের উদ্ধার করে লামা হাসপাতালে নিয়ে আসে। আহত মিজ্ঞাউ মার্মার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে চমেক হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

প্রত্যেক্ষদর্শীরা জানান, মোটর সাইকেলে করে মিজ্ঞাউ মার্মা তার বাড়ি হতে কম্পনিয়া এলাকায় কাজে যাচ্ছিলেন। এসময় বিপরীত দিক থেকে আসা মাহিন্দ্র গাড়িটি বাইশপাড়ি যাত্রী ছাউনির টেকে মুখামুখি সংঘর্ষ হয়। মোটর সাইকেলটি দুমড়ে-মুছড়ে যায় এবং মিজ্ঞাই মার্মা ও আবু শামা গুরুতর আহত হয়। মোটর সাইকেল ও মাহিন্দ্র উভয়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে দুর্ঘটনাটি ঘটে বলে জানা যায়।

লামা সরকারী হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার সরকারী মেডিকেল অফিসার বিবি হাজেরা বলেন, মিজ্ঞাউ মার্মার ডান পা একবারে ভেঙ্গে গেছে। তাকে চমেক হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

লামা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আশাফুজ্জামান লিটন বলেন, অফিসার ইনচার্জ এর নির্দেশে শুনামাত্র আমি সঙ্গীয় পুলিশ সদস্য নিয়ে ঘটনাস্থলে যাই এবং রোগীদের হাসপাতালে এনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করি ।

বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions