সোমবার | ২৪ জুনe, ২০১৯

খাগড়াছড়িতে এক শিক্ষককে কুপিয়েছে দূর্বৃত্তরা : চট্টগ্রামে প্রেরণ

প্রকাশঃ ১৭ মার্চ, ২০১৯ ১১:৪২:০৬ | আপডেটঃ ২৩ জুনe, ২০১৯ ০১:৩৯:২৭
সিএইচটি টুডে ডট কম, খাগড়াছড়ি। খাগড়াছড়ি জেলা সদরের শালবন এলাকায় আক্তার হোসেন(৩৮) নামে এক স্কুল শিক্ষককে কুপিয়েছে দূর্বৃত্তরা। রবিবার রাত আনুমানিক সাড়ে ৬টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। সে খাগড়াছড়ি পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেনের ছেলে এবং লক্ষীছড়ি উপজেলার লেলাং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

তাঁর মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। তাকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। এই হামলার জন্য পৌর মেয়র মো: রফিকুল আলম ও তার সমর্থকদের দায়ী করেছে আক্তার হোসেনের পরিবার। 

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মধ্য শালবন এলাকায় নিজ বাসার সামনে ৮/৯জন দূর্বৃত্ত আক্তার হোসেনকে এলোপাথারি মারধর করে এবং মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে আহত অবস্থায় খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসাপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: আলাউদ্দিন বলেন, আহত ব্যক্তির মাথার মাঝখানে অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। তবে অবস্থা স্থিতিশীল।

আহত আক্তার হোসেনের ছোট ভাই সাইফুল হোসেন বলেন, আমার ভাই(আক্তার হোসেন) পৌর মেয়র মো: রফিকুল আলমের বিরুদ্ধে একটি মানহানির মামলা করে। মামলাটি প্রত্যাহার করার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে মেয়র ও তাঁর লোকজন আমার ভাইকে নানাভাবে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছিল। মামলা প্রত্যাহার না করায় এবং উপজেলা নির্বাচনে তাদের প্রচন্দের এক ভাইস চেয়ারম্যানের পক্ষে কাজ না করার অভিযোগ তুলে সুযোগ বুঝে মেয়রের লোকজন এ হামলা করেছে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ জানুয়ারী খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলমের বিরুদ্ধে চীফ জুডিশয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২ কোটি টাকার মানহানীর মামলা করেন আহত আক্তার হোসেন। মামলাটি পুলিশী তদান্তাধীন রয়েছে।

খাগড়াছড়ি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions