বুধবার | ০৮ এপ্রিল, ২০২০

রাঙামাটি জেলা উন্নয়ন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশঃ ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ১০:৫৯:২৮ | আপডেটঃ ০৭ এপ্রিল, ২০২০ ১২:৫৩:২২
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেছেন, স্বাধীন রাষ্ট্র উপহার দেওয়ার পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার। তিনি সেটা করে যেতে পারেননি। তাঁর সুযোগ্য কন্যা বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে সেই স্বপ্নের দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়াই হবে মুজিববর্ষের অঙ্গীকার। জেলার সকল প্রতিষ্ঠান প্রধানদের স্বতঃস্ফূর্তভাবে মুজিববর্ষ পালনের আহ্বান জানান তিনি।

মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সভাকক্ষ (এনেক্স ভবন) এ অনুষ্ঠিত জেলা উন্নয়ন কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।   

রাঙামাটি জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা ছাদেক আহমদ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাঈন উদ্দিন চৌধুরী, সহকারী কমিশনার পল্লব হোম দাস, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সরকারী পরিচালক রতন কুমার নাথ’সহ পরিষদের হস্তান্তরিত বিভাগের কর্মকর্তা, জেলা ও উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় সভাপতির জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, পর্যটনখ্যাত এ জেলা শহরকে যানজটমুক্ত ও পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে পৌরসভার পাশাপাশি সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি প্রতিটি উন্নয়ন সভায় উপস্থিত থেকে এ জেলার শান্তি শৃংখলা ও উন্নয়নে পরামর্শ ও মতামত প্রদানের জন্য সকলকে আহ্বান জানান।

রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাঈন উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ জেলার মানুষ অনেক শান্ত প্রকৃতির। তাই এখানে ক্রাইমের পরিমানটাও কম। অন্যান্য জেলায় যেভাবে চুরি, ডাকাতি’সহ বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে এখানে তেমনটা নেই বললেই চলে। তিনি বলেন, দেশের প্রতিটি উন্নয়ন কর্মকান্ডেই আইনশৃংখলা বাহিনীর সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে। তাই এ জেলার সার্বিক উন্নয়নে কোন সন্ত্রাসী যদি তাদের সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে উন্নয়ন কার্যক্রমে বাধাগ্রস্ত করে তাহলে আইনশৃংখলা বাহিনীকে অবগত করার পরামর্শ দেন তিনি।

সভায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার পল্লব হোম দাস বলেন, সামনে বর্ষা মৌসুম। বর্ষা এলেই এখানকার মানুষ ভূমিধ্বসের আতংকে থাকে। তাই অপরিকল্পিতভাবে যারা পাহাড়ের পাদদেশে বাড়ীঘর নির্মাণ করে বসবাস করছে তাদের সতর্ক করতে সকলের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

রাঙামাটি পৌরসভার প্যানেল মেয়র জামাল উদ্দিন বলেন, পৌর এলাকায় যে সমস্ত রাস্তা নষ্ট হয়ে গেছে সেগুলো সংস্কারের জন্য নতুন প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, জেলা প্রশাসন, ফরেস্ট কর্মকর্তা ও সকলের সহয়োগিতায় ফরেষ্ট অফিস সংলগ্ন রাস্তার দুপাশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ৩ বার এ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এছাড়া নিয়মিত পরিচ্ছন্নতা অভিযান অব্যাহত রয়েছে।  

গণপূর্ত বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ আনিসুল হক বলেন, লংগদু ও রাজস্থলী উপজেলার ফায়ার স্টেশনের কাজ চলমান রয়েছে। যেসমস্ত উপজেলায় ফায়ার স্টেশন নির্মাণ কাজ করার কথা রয়েছে সেগুলো শীঘ্র করা হবে। তিনি বলেন, রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল ২৫০ বেড এ উন্নীতকরণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

তিনটি পার্বত্য জেলায় বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন প্রকল্পের সহকারী প্রকৌশলী এ আর মুজিব বলেন, বাঘাইছড়ির সাজেকে বিদ্যুৎ সংযোগ লাইন কাজ চলমান রয়েছে। বিদ্যূৎ সংযোগ লাইনের কাজ শীঘ্রই সম্পন্ন করে আগামী জুন মাসে লাইন চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে।

এছাড়া উত্তর, দক্ষিণ বন বিভাগ, ঝুম নিয়ন্ত্রণ, ইউএসএফ ও পাল্পউড বাগান বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তাগণ জানান, মুজিববর্ষকে সামনে রেখে বর্তমানে স্থানীয় গাছের চারাগুলো রোপণ ও চারা কলম উত্তোলন করা হচ্ছে।


সভায় উপস্থিত অন্যান্য বিভাগীয় কর্মকর্তাগণ স্ব স্ব বিভাগের কার্যক্রম উপস্থাপন করেন।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions