শনিবার | ১৯ অক্টোবর, ২০১৯
৪টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন

পার্বত্য শান্তি চুক্তির পর থেকে পাহাড়ে উন্নয়নের জোয়ার বইছে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রকাশঃ ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৫:১৭:৩৬ | আপডেটঃ ১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০৯:১৪:৫২
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রাকৃতিক সৌর্ন্দয্য লীলাভুমি পার্বত্য চট্টগ্রাম, ১৯৭৭ সাল থেকে এখানে অস্থিরতা সৃষ্টি হয়, ১৯৯৬ সনে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার ১৯৯৭ সনের ২রা ডিসেম্বর পার্বত্য শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর করে। শান্তি চুক্তির পর পাহাড়ে শান্তি আসে এবং পাহাড়ে উন্নয়নের জোয়ার বইছে এবং পার্বত্য অঞ্চলের মানুষ আর্থসামাজিকভাবে যথেষ্ট উন্নতি করে যাচ্ছে। পাশাপাশি বিদ্যুৎ ঘরে ঘরে পেীঁছালে আরো বেশী আর্থসামাজিক উন্নয়ন হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বুধবার দুপুরে গনভবন থেকে রাঙামাটির কাপ্তাইয়ের ৭.৪ মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ  কেন্দ্রসহ ৪টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন শেষে রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কেন্দ্রে ভিডিও কনফারেন্সে মতবিনিময় করার সময় একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো বলেন, কাপ্তাইয়ে সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু করা হলেও পার্বত্য এলাকার দুর্গম এলাকা যেখানে বিদ্যুৎ পৌছানো সম্ভব না সেখানে তালিকা করে সোলার প্যানেল দিতে হবে। সরকার রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানের দুর্গম অঞ্চল ও চর এবং হাওর অঞ্চলসহ প্রত্যেকটা ঘর যেন বিদ্যুৎ এর আলোয় আলোকিত হয়  সরকার সে ব্যবস্থা নিবে।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, পার্বত্য এলাকায় উচ্চ শিক্ষার জন্য আমরা রাঙামাটিতে মেডিকেল কলেজ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যায় করে দিয়েছি, মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক দিয়েছি।
প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, পার্বত্য এলাকায় আমরা আবাসিক স্কুল করতে চাই, দুর্গম এলাকার ছেলে মেয়েদের স্কুল আসতে যেতে অনেক কষ্ট হয়, তারা আবাসিক থেকে যেন লেখাপড়া করতে পারে সরকার সে উদ্যেগ নিয়েছে। পার্বত্য তিন জেলার দুর্গম এলাকাগুলোতে আবাসিক স্কুল স্থাপনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নিতে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজের খোঁজ খবর নেন, এবং পার্বত্য এলাকার দুটি উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যেন পার্বত্য এলাকার কৃষ্টি কালচারকে সমুন্নত রেখে  স্থায়ী ক্যাম্পাসে যেতে পারে সে জন্য দ্রুত কাজ করার নির্দেশ দেন।


মতবিনিময় সভায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ ছাড়াও রাঙামাটি বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড: প্রদানেন্দু চাকমা, একজন স্কুল শিক্ষার্থী ও পোল্ট্রী ব্যবসায়ী বক্তব্য রাখেন।
এছাড়া অনুষ্ঠানে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাইনুর রহমান এফ ইউপি,পিএসসি, চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়, রাঙামাটি বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিদ্যালয়ের ভিসি প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমা, রাঙামাটি জোন কমান্ডার মোঃ রফিকুল ইসলাম পিএসসি,এমএসসি,রাঙামাটি সিভিল সার্জন ডাঃ শহীদ তালুকদার, রাঙামাটি পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর কবির, রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. টিপু সুলতান, রাঙামাটি পৌরসভা মেয়র মোঃ আকবর হোসেন চৌধুরী, রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ শহীদুজ্জামান মহসীন রোমানসহ বিভিন্ন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।




রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions