সোমবার | ২৬ অগাস্ট, ২০১৯
কাপ্তাই হ্রদে কার্পজাতীয় মাছের পোনা অবমুক্তকরণ

কাপ্তাই হ্রদকে অবহেলার কোনো সুযোগ নেই : মৎস্য ও প্রানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশঃ ১৭ মে, ২০১৯ ০৫:১১:০৯ | আপডেটঃ ২৫ অগাস্ট, ২০১৯ ০৫:২৩:১৫
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু বলেছেন, রাঙামাটির বিশাল কাপ্তাই হ্রদকে অবহেলার কোনো সুযোগ নেই। এটি বাংলাদেশের অন্যতম জাতীয় ও মূল্যবান সম্পদ। এলাকার জনগণের বহুমুখী সুযোগ-সুবিধার অন্যতম উৎস। তাই এ হ্রদকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। এ জন্য দরকার সবার সমন্বিত প্রচেষ্টা।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু শুক্রবার সকালে রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে কার্পজাতীয় মাছের পোনা অবমুক্তকরণ কার্যক্রম উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাছের চাহিদা পূরণসহ জাতীয় অর্থনীতির উন্নয়নে কাপ্তাই হ্রদে মাছের উৎপাদন বাড়াতে হবে। কার্প জাতীয় রুই, কাতলা, মৃগেলসহ পাবদা, কালি বাউস, কালি ঘনিয়া ও সাদা ঘনিয়া প্রজাতি মাছের উৎপাদন বাড়াতে বিশেষ উদ্যোগ ও পরিকল্পনা নিতে হবে। কাপ্তাই হ্রদ থেকে যে হারে রাজস্ব আয় আসার কথা, তা হচ্ছে না। ছোট মাছের প্রজাতি কমিয়ে বড় মাছের সংখ্যা বাড়াতে হবে। বিশাল এ কাপ্তাই হ্রদ থেকে মাছ চাষের পাশাপাশি আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদন করে থাকি। এ ছাড়া হ্রদের পানি এ এলাকার মানুষের উপকারে কাজে লাগে। তাই কাপ্তাই হ্রদকে অবহেলার কোনো সুযোগ নেই।

বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএফডিসি) কাপ্তাই হ্রদ মৎস্য উন্নয়ন ও বিপণন কেন্দ্রের প্রাঙ্গণে জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিএফডিসির চেয়ারম্যান দিলদার আহমদ ও মহাপরিচলক ইয়াহিয়া মাহমুদ। অনুষ্ঠানে বিএফডিসির কাপ্তাই হ্রদের বিপণন কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক কমান্ডার মো. আসাদুজ্জামান খাঁন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ছুফি উল্লাহসহ সরকারি কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সুশীল সমাজ ও মৎস্যজীবী উপস্থিত ছিনে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান দিলদার আহমদ বলেন, কাপ্তাই হ্রদে যে বড় দুটি চ্যানেল রয়েছে, সেগুলো সংরক্ষণের মাধ্যমে মাছের রেনু উৎপাদন করা যেতে পারে। তখন এ হ্রদে আর কার্প জাতীয় মাছের অভাব পড়বে না। বর্তমানে হ্রদে পাওয়া যায় কার্প জাতীয় মাছ ২০ ভাগ আর বাকি ৮০ ভাগ ছোট মাছ। এ পরিস্থিতিতে থেকে বেরিয়ে আসতে অনেক কিছুর করণীয় পদক্ষপ নিতে হবে।
বিএফডিসির মহাপরিচালক ইয়াহিয়া মাহমুদ বলেন, কাপ্তাই হ্রদ ড্রেজিংসহ হ্রদে কার্প জাতীয় মাছ উৎপাদন নিয়ে উচ্চপর্যায়ে আলোচনা। তবে এসব কর্মকান্ড বাস্তবায়নে কিছুটা দেরি হতে পারে। অনুষ্ঠান শেষে কাপ্তাই হ্রদের রাঙামাটি মৎস্য অবতরণ ঘাটে কার্পজাতীয় মাছের পোনা অবমুক্ত করেন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিন্ত্রী।

এবছর ৩০ টন মাছের পোনা অবমুক্তকরন করা হবে বলে জানান বিএফডিসি কর্মকর্তা।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions